বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের উপর জুলুম-অত্যাচার হওয়া সত্ত্বেও প্রতিনিয়ত পবিত্র ধর্ম ইসলাম গ্রহণ করছে মানুষ। দিন দিন বেড়েই চলছে মুসলিম জনসংখ্যা। মুসলিম জনসংখ্যা বৃদ্ধির এ হার বাড়তে থাকলে আগামী ৩৫-৪০ বছরেই বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৭০ ভাগই হবে মুসলিম।
ইউরোপের সর্ব উত্তরের দেশ নরওয়ে সম্পর্কে সম্প্রতি সংবাদমধ্যমের একটি প্রতিবেদন আমাকে বেশ চমৎকৃত করেছে।
নরওয়ের ভারডেনস গ্যাঙ্গ-এর বরাতে আনাদোলু এজেন্সি এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

নরওয়ের ইউনিভার্সিটি অব অসলো’র কালচারাল স্টাডিজ অ্যান্ড অরিয়েন্টাল ল্যাঙ্গুয়েজ বিভাগের এক গবেষক তুরস্কের আনাদোলু এজেন্সিকে জানান, নরওয়েতে প্রতি বছর অন্তত ৩ হাজার নরওয়েজিয়ান পবিত্র ধর্ম ইসলাম গ্রহণ করছেন।

এদিকে বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ গবেষণা সংস্থাগুলোর একটি যুক্তরাষ্ট্রের পিউ রিসার্সের গবেষণা বলেছে, বিশ্বের বর্তমান জনসংখ্যা ৭৩০ কোটি। যার মধ্যে ২৩০ কোটি খ্রিষ্টান, ১৮০ কোটি মুসলমান, হিন্দু ১১০ কোটি, ১১০ কোটি মানুষের বিশেষ কোনো ধর্ম নেই এবং বাকিরা অন্য ধর্মাবলম্বী। বর্তমান বিশ্বে খ্রিষ্টান মায়েরা সবচেয়ে বেশি শিশুর জন্ম দিচ্ছে। কিন্তু আগামী ১৫-১৬ বছর তথা ২০৩৫ সাল নাগাদ এই চিত্র বদলাতে শুরু করবে।

২০১০ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে বিশ্বে ২২ কোটি ৩০ লাখ খ্রিষ্টান শিশু জন্ম নেয়। আর মুসলিম শিশুর জন্ম হয় ২১ কোটি ৩০ লাখ। কিন্তু ২০৩০-৩৫ মেয়াদে ২২ কোটি ৪০ লাখ খ্রিষ্টান শিশুর বিপরীতে ২২ কোটি ৫০ লাখ মুসলিম শিশু জন্ম নেবে।

গবেষণায় আরও জানায়, ২০৬০ সাল নাগাদ বিশ্বের জনসংখ্যা দাঁড়াবে ৯৬০ কোটিতে। আর এ জনসংখ্যার প্রায় ৭০ ভাগই হবে মুসলিম। মুসলিমদের মাঝে তরুণদের সংখ্যা হবে বেশি। ফলে তাদের প্রজনন হারও বেশি থাকবে বলে জানায় সংস্থাটি। গবেষণা বলছে, ২০২০ সাল থেকে ২০৬০ সাল পর্যন্ত খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা বাড়বে ৮০ কোটি আর এর বিপরীতে মুসলিম জনগোষ্ঠীর বাড়বে ১২০ কোটি। সূত্র: অধিকার

Share This Post