বিশ্বব্যাপী করোনার প্রকোপের কারণে চলমান দেশি-বিদেশি সব জামাতকে নিজ নিজ ঘরে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ তাবলিগ জামাতের মারকাজ কাকরাইল থেকে।

গতকাল শনিবার বাদ যোহর যাত্রাবাড়ীর মাদানি মসজিদে এক জরুরি মাশওয়ারায় এ-ই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কাকরাইল মারকাজের একটি বিশেষ সূত্র আওয়ার ইসলামকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা যায়, গতকাল কাকরাইল মারকাজের শুরা সদস্য মাওলানা মুহাম্মদ হোসেন অনান্য শীর্ষ মুরব্বিদের সঙ্গে আলাপ করে এ-ই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

ইতোমধ্যে ৬ শত জামাত কাকরাইলে ফিরে এসে নিজ নিজ এলাকায় চলে গেছে এবং মহল্লার মেহনতে জোড়েছে বলে জানা গেছে।
বাংলাদেশে মোট ২৭ শ জামাত মাঠে দাওয়াতের কাজ করছেন।

ইজতেমা থেকে বের হওয়া ২৭৮ জামাত, এক চিল্লার আরও ৬০০ জামাত, এবং কিছু বিদেশি জামাত দেশের নানা স্থানে দাওয়াতের মেহনত করছে।

এছাড়াও সম্প্রতিক শেষ হওয়া এসেসসি পরীক্ষার ছাত্রদের ৩৬ জামাত ময়দানে কাজ করছে। কাকরাইল সূত্র জানিয়েছে প্রায় সব জেলা উপজেলায় তাবলিগের জামাত চলমান রয়েছে। বিষয় করে ময়মনসিংহে ৩৯৫ জামাত, ভোলায় ২৭০ জামাত কক্সবাজের ৮৬ জামাত এবং চট্টগ্রামে ১৪০ জামাত মসজিদে মসজিদে কাজ করছে।

এদিকে ভারতের নিজামুদ্দিন মসজিদে তাবলিগ জামাতে যোগ দেয়া তেলেঙ্গানার ছয়জন ও শ্রীনগরের একজন মোট সাতজন এরইমধ্যে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এজন্য বাংলাদেশের মারকাজ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এছাড়া নিযামুদ্দিনের ওই জমায়েতে অংশ নেয়া তামিলনাড়ুর আরও অন্তত ৫০ জনের করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে। দিল্লির নিজামুদ্দিন মসজিদটিতে কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রায় ২০০০ লোকের জমায়েত হয়েছিল। তাদের মধ্যে করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়া তিন শতাধিক মানুষকে গত সোমবার হাসপাতালে নেয়া হয়। মঙ্গলবার মধ্য রাতে পুলিশ ও গোয়েন্দার যৌথ অভিযানে মসজিদটি সিল করে দেয়া হয়েছে বলেও জানা যায়।

Share This Post