গত বছরের মাঝামাঝিতেই বলিউডে বেশ রব উঠেছিল, ২০২০ সালের ঈদে বোধহয় দুই সুপারস্টার সালমান ও শাহরুখ খানের মধ্যে দ্বৈরথ যুদ্ধটা আবার লেগেই যাবে।

মনস্তাত্বিক যুদ্ধটা তো আগেই ছিল। গত বছরের আগষ্ট মাস থেকেই মুলত এ গুঞ্জন শুরু হয়। গুঞ্জনের মুল উদ্যোক্তা সঞ্জয়লীলা বানসালি।
সে সময় ‘ইনশাল্লাহ’ নামে নতুন একটি ছবি তৈরির ঘোষণা দেন এ পরিচালক। যার মুখ্য ভূমিকায় থাকবেন সালমান খান ও আলিয়া ভাট।

২০২০ সালের ঈদকে টার্গেট করেই এ ছবি নির্মাণের কথা জানিয়েছিলেন বানসালি। এদিকে সালমানও তার নতুন ছবি ‘কিক-২’ ঈদে নিয়ে আসার কথা জানিয়েছেন।

সালমানের কিকের কথা শুনেই বানসালি ‘ইনশাল্লাহ’ থেকে পিছু হটেন। দ্বারস্থ হন শাহরুখ খানের।

বলিউড বাদশাকে নিয়ে ঈদের জন্য ছবি তৈরির খায়েশে ‘ইজহার’ নামে একটি ছবি নিবন্ধনও করেন। নিবন্ধনের পরপরই শাহরুখের সঙ্গে আলাপে বসেন।
সিদ্ধান্ত হয় ছবিটি প্রযোজনা করবেন শাহরুখ খান। সেই মতে কাজও চলছিল। চিত্রনাট্য তৈরি, শুটিং স্পট দেখা সবকিছুতে মাস চারেক সময় কেটে যায়।

শুটিংয়ের সিদ্ধান্ত যখন চূড়ান্ত তখন চীনের উহানে হানা দেয় করোনাভাইরাস। ধীরে ধীরে ভাইরাসটি বিশ্বব্যাপী নিজের আস্তানা গাড়তে শুরু করে। ফলে মাথায় বাজ পড়ে বলিউডবাসীর।

বিশেষ করে সালমান ও শাহরুখের। এমনিতেই গত দুই বছরে কোনো হিট ছবি নেই শাহরুখের। বানসালিকে নিয়ে নতুনভাবে যদি দাঁড়ানো যায়, সেই চেষ্টার গুড়ে বালি ঢেলে দিল করোনা! পিছু হঠলেন শাহরুখ। বাতিল হলো ঈদের প্রজেক্ট।
যদিও অনেকে ভেবেছিলেন, ঈদে বোধহয় সালমান শাহরুখের যুদ্ধটা লেগেই যাবে। কারণ দীর্ঘদিন কোনো উৎসবে একসঙ্গে দুই খানের আলাদা ছবি মুক্তি পাওয়ার রেকর্ড নেই।

যদি সেরকম কিছু ঘটে যায় তাহলে দুই খানের মধ্যে যে নতুন করে মানসিক দ্বন্দ্ব তৈরি হবে এটা নিশ্চিত। কিন্তু সেই দ্বন্দ্বটা শেষ পর্যন্ত হতে দেয়নি করোনাভাইরাস।

শাহরুখ নির্মাণ থেকে পিছিয়ে গেলেও সালমান খান কিন্তু ঈদের প্রজেক্ট ঠিকই ধরে রেখেছেন। ঈদে ভাইজানের ছবি মুক্তি পাবে না সেটা ভাবাও যেন ভুল।

গত ১১ বছর অন্তত এর ব্যত্যয় ঘটেনি। ‘কিক-২’ হয়নি তাতে কী? ‘রাধে : ইয়োর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই’ নামে আরও একটি ছবি গেল বছরের শেষ প্রান্তেই শুটিং করে ফেলেছেন। বাকি ছিল মাত্র কয়েকটি দৃশ্যের।
করোনার হানায় শেষ পর্যন্ত তা আর করা হয়নি। আর শুটিং শেষ করতে পারলেও হয়তো কোনো লাভ হতো না। কারণ, ভারতজুড়ে লকডাউনের কারণে গত দুই মাস ধরে সিনেমাহল বন্ধ।

তাই যুগপ্রান্তে এসে এবারের ঈদে ভক্তদের নিরাশ হতে হয়েছে। তবে ঈদে ছবি মুক্তি দিতে পারেননি, তাতে কী হয়েছে? ছবির পরিবর্তে ঈদ উপহার হিসেবে ‘ভাই ভাই’ শিরোনামে একটি গান প্রকাশ করেছেন ভাইজান।
গানটি সালমানের নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ হয়েছে। আরও চকমপ্রদ তথ্য হচ্ছে, গানটি সালমান নিজেই গেয়েছেন। এতে হিন্দু ও মুসলিমের মধ্যে ধর্মীয় সম্প্রীতি ভাবনা প্রকাশ করেছেন সালমান।

আপাতত এটিই ঈদে ভক্তদের জন্য সালমানের উপহার।
তবে ঈদের আগেই পানভেলের ফার্ম হাউসে বসে ‘প্যায়ার করো না’ ও ‘তেরে বিনা’ শিরোনামে দুটি গান নিজেই গেয়ে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করেন সালমান খান। প্রকাশের পর দুটি গানই সুপারহিট।

অন্যদিকে শাহরুখ খান ঈদে নিয়মিত ছবি মুক্তি না দিলেও প্রতি ঈদে নিয়মিত একটি কাজ ঠিকই করেন। সেটা হচ্ছে, ঈদের দিন মুম্বাই নিজের বাংলো মান্নতের বেলকনিতে দাঁড়িয়ে ভক্তদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা জানানো।

গত কয়েকবছর ধরে এর ব্যত্যয় না ঘটলে এবার ধারাবাহিকতায় টান পড়েছে। আর এর জন্যও দায়ী করোনাভাইরাস।

দেশজুড়ে লকডাউন ও গণজমায়েত নিষিদ্ধের মধ্যেও প্রিয় নায়ককে একনজর দেখার লোভ কেউ কেউ সংবরণ করতে পারেননি। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঠিকই হাজির হয়েছিলেন মান্নতের সামনে।
কিন্তু দাঁড়াতে পারেননি এক মিনিটের বেশি। সেই এক মিনিটে ধরাও দেননি বলিউড বাদশা। তবে নেটদুনিয়ায় ভক্তরা অপেক্ষা করছিলেন কখন তাদের উদ্দেশ্যে দুটো কথা বলবেন শাহরুখ।

সেখানেও বিলম্ব। ঈদের একদিন পর টুইটারে লিখেছেন- ‘আল্লাহর আশীর্বাদে আমরা এই কঠিন সময় পার করতে পারব। শেষ পর্যন্ত বিশ্বাস আমাদের এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। ঈদ মোবারক। নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ সবার জীবন ভালোবাসা, শান্তি, সমৃদ্ধিতে ভরিয়ে দেবেন।’
দেরিতে টুইট করার কারণে কেউ কেউ তাকে টিপ্পনি কাটতেও ছাড়েননি।

এদিকে ঈদের মাত্র দুইদিন আগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি রাজ্যটির রাজধানীকে নতুন করে সাজানোর কাজেও সহযোগিতার কথা জানিয়েছেন শাহরুখ খান।

Share This Post