বাংলাদেশে ক’রোনাভা’ইরাস শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই দেশে প্রতিদিনই দুই হাজারের বেশি মানুষের শরীরে ধরা পড়ছে এই ভা’ইরাসের সংক্রমণ।
এর ফলে ক’রোনা আক্রান্তের বৈশ্বিক তালিকায়ও লাফিয়ে উপরের দিকে উঠছে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ এই দেশটি।

ক’রোনাভা’ইরাসের বৈশ্বিক পরিস্থিতি নিয়ে শুরু থেকে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা যুক্তরাষ্ট্রের বাল্টিমোরের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন শীর্ষ ২০-এ।
গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৫৭ হাজার ৫৬৩ জন আক্রান্ত নিয়ে ২১তম স্থানে ছিল বাংলাদেশ। আজ আরও ২ হাজার ২২৮ জন নতুন আক্রান্ত যোগ হওয়ায় দেশে এখন কোভিড-১৯ রোগী দাঁড়িয়েছে ৬০ হাজার ৩৯০ জনে। আর তাতে জনস হপকিন্সের তালিকায় ২০তম স্থানে উঠে আসে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ উপরে উঠে আসায় ২১তম স্থানে নেমে গেছে ৫৮ হাজারের বেশি করোনা আক্রান্তের দেশ বেলজিয়াম। ৬৩ হাজার ৭৪১ জন আক্রান্ত নিয়ে বাংলাদেশের ঠিক ওপরে মধ্য প্রাচ্যের দেশ কাতার। আর ৬৪ হাজার ১৭১ জন আক্রান্ত নিয়ে ১৮তম স্থানে আছে ক’রোনাভা’।ইরাসের আঁতুড়ঘর চীন।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস।
বাংলাদেশে এই ভা’ইরাসে আক্রান্ত রোগীর প্রথম খোঁজ মেলে ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে প্রথম মৃত্যু ঘটে।

আজ বাংলাদেশে আরও ৩০ জনের মৃত্যুসহ মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮১১ জনে। বেড়েছে সুস্থ মানুষের সংখ্যাও। আরও ৬৪৩ জনসহ মোট সুস্থ হয়েছেন ১২ হাজার ৮০৪ জন।
বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেওয়া সবশেষ হিসাব অনুযায়ী, দেশে ক’রোনাভা’ইরাসের নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ২০.০৭ শতাংশ; মৃত্যুর হার ১.৩৪ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ২১.০২ শতাংশ।

এদিকে, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ লাখ ৫৬ হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার। আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয় তালিকাতেই দেশ হিসেবে শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র।

Share This Post