Spread the love

পাকিস্তান-শাসিত কাশ্মিরের রাষ্ট্রপতি সরদার মাসউদ খান বলেছেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তায়্যিব এরদোগান মুসলিম সম্প্রদায়ের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে দৃঢ় অবস্থানের কারণে ইসলামী নবজাগরণের প্রতীক হয়ে উঠেছেন।

শুক্রবার (১৪ নভেম্বর) আজাদ জম্মু ও কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদের যেসব সদস্য এবং শিক্ষার্থীরা তুর্কি উচ্চ শিক্ষা কাউন্সিলের আন্তর্জাতিক বৃত্তি প্রোগ্রাম ২০২০ এর অধীনে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের জন্য তুরস্ক যাচ্ছেন তাদের জন্য আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদসনকালে এ কথা বলেন তিনি। এসময় তিনি বলেন, তুরস্ক মুসলিম বিশ্বের জন্য ভরসাস্থল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

খান আরো বলেন, তুর্কি ও কাশ্মীরি জনগণের মধ্যে বন্ধনকে আরও জোরদার করা হবে। এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের মানসম্পন্ন উচ্চতর শিক্ষার সুবিধার্থে বৃত্তি চালু করায় তুর্কি সরকার এবং তুর্কি উচ্চ শিক্ষা কাউন্সিলকে ধন্যবাদ জানান।

কাশ্মীর ইস্যুতে তুরস্কের দীর্ঘদিনের নীতিগত অবস্থানের প্রশংসা করে খান বলেন, গত বছর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনসহ প্রতিটি আন্তর্জাতিক ফোরামে দীর্ঘস্থায়ী বিরোধের বিষয়ে এরদোয়ান যে স্থিরতা প্রদর্শন করেছিলেন তার কোনও নজির নেই।

তিনি ২০০৫ সালের ভূমিকম্পের পরে তুরস্কের সহায়তা এবং কাশ্মীরে ২০০০ সালের বন্যার পরে সহায়তার কথা উল্লেখ করে বলেন, পাকিস্তান ও কাশ্মীরি জনগণের প্রতিটা কঠিন সময়ে তুরস্ক পাশে থেকে সহায়তা করেছে।

তিনি আজাদ কাশ্মীরের কৃষি, পর্যটন ও শিক্ষা খাতে বিনিয়োগের জন্য তুর্কি বিনিয়োগকারীদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

এদিকে, পাকিস্তানে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত ইহসান মোস্তফা ইয়ুরদাকুল বলেছেন, এই শিক্ষাবৃত্তি কর্মসূচির জন্য নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা মানসম্মত শিক্ষার পাশাপাশি তুরস্কের ইতিহাস, সংস্কৃতি এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করবে।

এসময় তিনি এ ব্যাপারে জোর দেন যে, তুরস্ক তার শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নয়নে এজেকে সরকারকে সমর্থন অব্যাহত রাখবে।

Share This Post