Spread the love

ছাত্রলীগ কখনোই টেন্ডারবাজি চাঁদাবাজি করে না বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয়।

তিনি বলেন, দিনের পর দিন ছাত্রদের দিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে বিএনপির আমলে। গঠনতন্ত্র ছাড়া বিএনপি’র ছাত্রসংগঠন ছাত্রদল রাজনীতি করে।

সংগঠনটির ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সোমবার (০৪ জানুয়ারি) এসব কথা বলেন জয়। করোনা মহামারির প্রেক্ষাপটে সংগঠনটির এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে ভার্চুয়াল পরিসরে।

রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। যেখানে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে নেতা-কর্মীদের নিয়ে ভার্চুয়াল মাধ্যমেই সংগঠনটির জন্মদিনের কেক কাটা হয়। এ সময় ছাত্রলীগের নেতারা বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক একটি শক্তি এখনও অস্থিরতা তৈরির অপচেষ্টা করছে। জাতির পিতার ভাস্কর্য নিয়ে যারা বিরোধিতায় নেমেছেন, যারা পাকিস্তানের এজেন্ডা বাস্তবায়নে নেমেছেন, তাদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলেও হুঁশিয়ার করেছেন নেতারা।

ছাত্রলীগ মাঠে থাকলে কেউ অসাম্প্রদায়িক চেতনা বাস্তবায়ন করতে পারবে না জানিয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘উন্নয়নের মহাসড়কে যারা বাধা দিতে চায় তাদের উদ্দেশ্য সফল হবে না। ৫০ লাখ নেতা-কর্মীর পরিবার ছাত্রলীগ সব সময়ই স্বাধীনতার পক্ষের সঙ্গী হয়ে থাকবে।

পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা ডিজিটাল বাংলাদেশের সুযোগ নিয়ে গুজব ছড়িয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায় উল্লেখ করে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, ‘তাদের এই আশা কোনোদিন পূরণ হবে না। সাম্প্রদায়িক রাজনীতি যারা ছড়াতে চায়, তাদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘দেশের একটি অপশক্তির কাছে সবচেয়ে বড় বাধা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। করোনায় যখন সবাই ঘরবন্দি তখন কিন্তু একমাত্র ছাত্রলীগই মাঠে ছিল।’

তিনি জানান, ‌বাংলাদেশ ছাত্রলীগ যেভাবে অতীতে জাতির জন্য কাজ করেছে, সেভাবে আগামীতেও এগিয়ে যাবে। কারণ, ‘বিনাস্বার্থে রাজনীতি করা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের নেত্রীর ভালোবাসা ছাড়া আর পাওয়ার কিছু নেই।’

Share This Post