Spread the love

হাদিল সালাহ জানো সে কে?
.
চেকপোস্টের ইসরাঈলী সেনারা ১৮ বছর বয়সী তেজস্বী কন্যা “হাদিল সালাহ” কে মুখ থেকে বোরকার নিকাব উঠাতে বললো!
কিন্তু নাহ! ঈমানের শক্তিতে বলিয়ান মুসলিম কন্যা হাদিল জানিয়ে দিলো, সে কিছুতেই তার বোরকার নিকাব সরাবে না!

ইহুদী সেই জানোয়াররা তখন বিভিন্ন ধরণের কটূক্তি করতে লাগলো।
তাদের কোনো কটূক্তিই হাদিলের ঈমানের প্রাচীরে ফাঁটল সৃষ্টি করতে পারলো না!
.
বুক বরাবর বন্দুকের নল তাক করে
বলা হলো, মুখের নিকাব সরাও!
অন্যথায় বুলেটের আঘাতে তোমাকে মরতে হবে।
হাদিল তবুও পিছপা হলো না।
হাদিলের ভাষ্য,
– “জান দিব! তবুও তোদের সামনে বোরকার নিকাব খুলবো না!”
_
একটি অথবা দুটি নয়!
হাদিলের বুকে, পেটে, পায়ে ১৫ টি বুলেট ছোঁড়া হলো!!!
পর্দা পরিহিতা অবস্থাতেই মাটিতে লুটিয়ে পড়লো ১৮ বছর বয়সী বীরঙ্গনা শাহীদা “হাদিল সালাহ”এর দেহ।
আল্লহু আকবার ..!
পরবর্তীতে টেনে হিচঁড়ে তার শরীরটি নিয়ে যাওয়া হয়।
_
প্রিয় বোন।
হাদিল সালাহ তো তোমার আমার মতোই এক তরুণী!
তুমিও তো মুসলিম ঘরে জন্ম নিয়েছিলে।
তোমাদের মাঝে পার্থক্য কি জানো?
.
হাদিল সালাহ ১৫ টি বুলেটের মাধ্যমে মৃত্যুকে পরম আদরে আলিঙ্গন করেছে।
তবুও ইহুদীদের সামনে মাথা নত করেনি! আল্লাহর ফরজ বিধানকে ছেড়ে দেয় নি।
.
আর তুমি?
পর্দা ছাড়া দিব্যি ঘুরে-বেরাচ্ছো!
হাজারো যুবকের সামনে নিজেকে বাজারের পণ্যের মত প্রদর্শন করছো।
অথবা, সমাজের লোকদের কটূ কথার সামনে মাথা নত করে পর্দাকে ছেড়ে দিয়েছো!

গরমের দোহাই দিয়ে নিজেকে পুরুষের বিনোদনের খোরাক করছো।
অথচ জাহান্নাম যে কতটা ভয়ঙ্কর গরম তা তোমার মাথাতেই নেই।
.
হাদিল সালাহ এর শাহাদাত থেকেও কি তুমি
নিজেকে শোধরাবে না!?
_
অনেকেই বলে “হাদিল সালাহ” (জন্ম -1997- মৃত্যু-2015)
সুমাইয়া বিনতে খুব্বাত (রাযিঃ) এর উত্তরসূরী।

সম্ভব হলে আপনি আপনার পরিচিত বোনদেরকে মেনশন করে লেখাটি পড়তে উৎসাহিত করুন!
লেখাটি পড়ে কোনো বোনের মনে দাঁগ কাটতেও তো পারে।

আল্লাহর ইচ্ছা হলে অবশ্যই সে এই ফরজ বিধান হতে আর দূরে সরে যেতে পারবে না।
ভালোবেসে পরম যত্নে আল্লাহর দেয়া এই আমানত (শরীর) পর্দার আড়ালে ঢেকে রাখবে।
.
আল্লাহ আমাদেরকে বুঝার তাওফিক দিক।
আমিন।

Share This Post