লুজান চুক্তির শেষ সময়ে এসে নতুন নতুন খনি ও প্রাকৃতিক সম্পদের আবিস্কার করে চলেছে এরদোগানের নেতৃত্বে বদলে যেতে থাকা মুসলিম বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী দেশ তুরস্ক।

১৩০ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাসের মজুদ আবিস্কারের পর এবার স্বর্ণ-রুপার নতুন খনির সন্ধান পেয়েছে তারা।

বিশেষজ্ঞদের অনুমান অনুযায়ী পূর্বাঞ্চলীয় আগরি প্রদেশের নব্য আবিষ্কৃত খনিতে প্রায় ২০ টন সোনা ও ৩.৫ টন রুপা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে, যার বাজারদর যথাক্রমে ১.২ বিলিয়ন এবং ২.৮ মিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) দেশটির শিল্প ও প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা বারঙ্ক সোনা-রুপার নতুন খনি আবিস্কারের ঘোষণা পূর্বক একটি বিবৃতি দেন।

তিনি বলেন, সোনা-রুপার নতুন নতুন খনির আবিস্কার তুরস্ক এবং উক্ত অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আবিস্কৃত নতুন খনির সোনা-রুপার মান দেশের অন্যান্য খনির তুলনায় অনেক ভালো, যার গ্রেড ভ্যালু ০.৯২!

বারাঙ্ক বলেন, সরকার স্বর্ণ খাতকে সম্পূর্ণ বদলে দিয়েছে। শূন্যে থাকা উৎপাদন খাতটি এখন উৎপাদনশীল বিশাল খাতে পরিণত হয়েছে। উক্ত খাতে এখন ৬ বিলিয়ন ডলারের বিশাল বিনিয়োগের পাশাপাশি ১৩ হাজার দক্ষ কর্মী নিয়োজিত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে কৃষ্ণ সাগরে ১৩০ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাসের মজুদ আবিস্কার করে তুরস্ক। যে ব্যাপারে দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছিলেন, এটি আমাদের দেশের প্রয়োজন মেটাতে সাহায্য করবে।শক্তিমত্তা ও সামর্থ্যে তা আমাদের স্বাধীন ও স্বতন্ত্র করে তুলবে।

সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর

Share This Post