মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে (২৬) দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাবাদের জন্য পুলিশ গাজীপুরের গাছা থানায় নিয়েছে। রবিবার দুপুরে কাশিমপুর কারাগার থেকে তাকে থানায় নেওয়া হয়।

গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারগার-২-এর জেলার মো. আবু সায়েম জানান, ‘শিশু বক্তা’ হিসেবে পরিচিত রফিকুল ইসলাম মাদানীকে দুইদিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রবিবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে এ কারাগার থেকে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) গাছা থানায় নেওয়া হয়েছে।

তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গত ৮ এপ্রিল গাছা থানায় ও ১১ এপ্রিল বাসন থানায় পৃথক দুইটি মামলা করা হয়।

গাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন জানান, গত ৭ এপ্রিল ভোররাতে নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দা গ্রামের বাড়ি থেকে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে আটক করে র‌্যাব-১-এর সদস্যরা।

ওই দিন রাতেই গাজীপুর মহানগরীর গাছা থানায় তাকে হস্তান্তর করা হয়। ৮ এপ্রিল মাদানীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন র‌্যাব-১-এর ডিএডি নায়েব সুবেদার মো. আব্দুল খালেক। এ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, আটককালে রফিকুল ইসলাম মাদানীর কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। তিনি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করতেন। এছাড়াও জব্দকৃত মোবাইল ফোনে আপ”ত্তিকর ও কু”রুচিপূর্ণ ‘এডা”ল্ট কনটেন্ট’ অ”শ্লী’ল ভিডিও চিত্রসহ প”র্নো’গ্রাফি পাওয়া গেছে।

ওসি আরো জানান, রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রুজুকৃত মামলায় প”র্নো’গ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ এর ৮(৫)(ক) ধারা সংযোজন করা হয়েছে। এ মামলায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ১৩ এপ্রিল সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে পুলিশ।

১৫ এপ্রিল রিমান্ড শুনানির দিনে তার দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন গাজীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শেখ নাজমুন নাহার।

Share This Post