Spread the love

লাভ জিহাদ’ ঠেকাতে কড়া আইন করার প্রস্তাব দিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) শাসিত কিছু রাজ্য সরকার। উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, কর্ণাটক, আসাম সরকার বেশ সৌচ্চার বিষয়টি নিয়ে। এই যখন অবস্থা ঠিক তখনই বিজেপি নেতাদের একহাত নিলেন পশ্চিমবঙ্গের সংসদ সদস্য ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান।

গত শনিবার (২১ নভেম্বর) কলকাতায় জগদ্ধাত্রী পুজোর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিজেপি নেতাদের কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন নুসরাত। বারাসাত লোকসভা আসনের এ সংসদ সদস্য বলেন, ‘এটা অত্যন্ত দুঃখের বিষয়। লাভ এবং জিহাদ কখনও এক হতে পারে না। ভালোবাসা সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত। আমি কাকে ভালোবাসব তা নিয়ে কারও কিছু বলার থাকতে পারে না। বিজেপিকে আমার একটাই পরামর্শ, ভালোবাসা যে ব্যক্তিগত তারা আগে সেটা বুঝুক। তাদের ভালোবাসতেও শেখা উচিত।’

শুধুমাত্র বিয়ের জন্য ধর্ম পরিবর্তন কোনো মতেই গ্রহণযোগ্য না। ভারতের এলাহাবাদ হাইকোর্ট সম্প্রতি এক রায়ে এমনটাই জানিয়েছেন। তারপর থেকে ‘লাভ জিহাদ’র বিরুদ্ধে সৌচ্চার বিজেপি। ওদিকে, ধর্মের ভেদাভেদ ভুলে নিখিল জৈনকে বিয়ে করেছিলেন নুসরাত। মুসলিম ধর্মের হয়ে বিয়ের সময় সিঁদুর ও মঙ্গলসূত্র পরতে দেখা যায় তাকে। এছাড়া হিন্দু ধর্মের অন্য রীতিপালনেও অংশ নিতে দেখা যায় নুসরাতকে। এ নিয়ে একাধিকবার সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছে এ অভিনেত্রীকে।

নুসরাত মনে করেন, ধর্মনিরপেক্ষভাবে সকলকে ভালোবাসা যায়। এতে ভুল কিছু নেই। তার ভাষায়, ‘আমি যখন মাজারে যাই, তখন তা নিয়ে কারও কোনো মাথাব্যথা থাকে না। এমনকি কোনো সংবাদমাধ্যমেও তা প্রকাশ বা প্রচার হয় না। কিন্তু আমি যখন কোনো হিন্দুদের অনুষ্ঠানে অংশ নিই তখন তা নিয়ে আলোচনার শেষ নেই। আমি নুসরাত, আমি বাঙালি মুসলমান পরিবারের মেয়ে। আমরা ধর্মনিরপেক্ষভাবে সকলকে ভালোবাসতে পারি। আর এটা কোনো ভুল নয়।

Share This Post