ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের নৃশংস ধ্বংসযজ্ঞে অচল হয়ে পড়েছে গাজা উপত্যকার ফিলিস্তিনিদের। পর নতুন করে জীবনযুদ্ধে নেমেছেন গাজা উপত্যকার বাসিন্দারা৷ ধ্বংসস্তূপে কেমন করে তারা বসবাস শুরু করছেন?

বাসার বদলে তাঁবু:
এক ছবিতে দেখা যায়, ভেঙে পড়া বাসার ধ্বংসস্তূপের ওপরে তাঁবু গেড়ে বসে আছে পরিবারের সদস্যরা৷ রাতের আঁধারে মোমবাতির আলোই তাদের সম্বল৷

অন্ধকারে আলো:
আরেকটি ছবিতে দেখা গেছে, গাজা উপত্যকার উত্তরাঞ্চলের একটি ঘর। আশপাশে কোথাও আলো নেই। শুধু একটি বাসার আলো দেখা যাচ্ছে। সেই বাসার একটি ছেলেকেও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে।

পতাকা:
দেখা গেছে, ইহুদিবাদী ইসরাইলের বিমান হামলায় ভেঙে পড়েছে গাজা উপত্যকার বহু বাড়িঘর। এমনই এক ভবনের উপরে উড়ছে ফিলিস্তিনের পতাকা।

পড়ে আছে শুধু বিছানা:
একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে ধ্বংস হওয়া এক বাসা। সেই বাসার ধ্বংসস্তূপ থেকে একটি জামা ও তোষক উদ্ধার করতে পেরেছে এক বালক।

রান্নাবান্না:
আরেক ছবিতে দেখা গেল, বাসার বেশিরভাগ ঘর ধ্বংস। অক্ষত আছে রান্নাঘরের একাংশ। সেখানে চুলা জ্বালিয়ে রান্না করছেন এক ফিলিস্তিনি নারী।

ধ্বংসস্তূপে শৈশব:
শহরের বেশ বড় একটা অংশ ইসরায়েলের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত। এর মাঝেই শৈশবের নানা মুহূর্ত খুঁজে নিচ্ছে শিশু-কিশোররা। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ধ্বংসস্তূপের পাশ দিয়ে সাইকেল চালিয়ে যাওয়া এক বালককে।

সংসার:
ইহুদিবাদী ইসরাইল ও ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতির পর থেকে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আবার সংসার সাজাতে শুরু করেছেন গাজা উপত্যকার স্থানীয়রা। ছবিতে এমনই একটি পরিবার।

সাজসজ্জা:
বিমান হামলায় ধ্বংস হওয়া ভবনের গায়েই পাতা রয়েছে চেয়ার, সামনে আয়না। এ অবস্থাতেই স্থানীয় এক নাপিত তার খদ্দেরদের চুল কাটছেন।

বাস্তবের মুখোমুখি:
রাতের অন্ধকারে হাতে ধরা মোমবাতির আলোতেও চলছে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিসের খোঁজ। ছবিতে মোমবাতি হাতে এক বালককে তার বাসার ধ্বংসস্তূপের দিকে তাকিয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে।

Share This Post