Spread the love

মুসলিম ধর্মাবলম্বী নারী পুলিশ সদস্যদের ইউনিফর্মের সঙ্গে হিজাব পরার অনুমতি দিয়েছে নিউজিল্যান্ড। এ বাহিনীতে সদ্য যোগ দেয়া কনস্টেবল জিনা আলী হচ্ছেন দেশটির প্রথম হিজাব পরিহিতা পুলিশ সদস্য।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন নিয়োগ পাওয়া কনস্টেবল জিনা আলী প্রথম হিজাব পরিধান করে আনুষ্ঠানিকভাবে এই সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন করবেন। নিউজিল্যান্ড পুলিশ বলছে, মুসলিম নারীদের আরও বেশি করে এই পেশায় আনতে পদক্ষেপটি নেওয়া হয়েছে। নিউজিল্যান্ড বরবার ধর্মনিরপেক্ষতার দিক থেকে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

মুসলিমদের মতো সংখ্যালঘুদের সব সময় আগলে রাখার চেষ্টা করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডান। হিজাব ইংল্যান্ডে কয়েকটি অঞ্চলের পুলিশ বিভাগে অফিসিয়াল ইউনিফর্মের স্বীকৃতি পেয়েছে। এর মধ্যে লন্ডনের মেট্রোপলিটন পুলিশ এবং পুলিশ স্কটল্যান্ড রয়েছে।

যুক্তরাজ্যে মেট্রোপলিটন পুলিশ ২০০৬ সালে হিজাব ব্যবহারের অনুমতি দেয়। ১০ বছর পর একই পথে হাঁটে পুলিশ স্কটল্যান্ড।
অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া পুলিশের নারী সদস্য মাহা শুক্কর ২০০৪ সালে হিজাব পরে ইতিহাস গড়েন।

নিউজিল্যান্ড পুলিশ জানিয়েছে, দুই বছর ধরে তারা হিজাব তৈরি করেছে। প্রথম সদস্য হিসেবে হিজাব পরতে যাওয়া আলীর জন্ম ফিজিতে। ছেলেবেলায় তিনি নিউজিল্যান্ডে পাড়ি দেন। ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলার পর তিনি পুলিশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডকে তিনি বলেন, “হিজাবকে অফিসিয়াল ইউনিফর্ম করায় খুব ভালো লাগছে। আশা করছি অনেক মুসলিম নারী এই পেশায় আসবেন।”

 

Share This Post