Spread the love

তুর্কি জনপ্রিয় টিভি সিরিজ আরতুগ্রুল দেখে প্রভাবিত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করলেন ৬০ বছর বয়সী এক মার্কিন নারী।

উইসকনসিনে বাস করা এই নারী ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পরে “খাদিজা” নামটি বেছে নিয়েছেন। আনাদোলু এজেন্সিটিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, নেটফ্লিক্স ব্রাউজ করার সময় তিনি আরতুগ্রুল সিরিজের কিছু পর্ব দেখে ইসলামের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েন।

তিনি বলেন শুরুতে আমি এটি খতিয়ে দেখলাম, এই সিরিজ সম্পর্কে বিস্তারিত জানলাম। পরে আমি দেখা শুরু করলাম, কয়েক পর্ব দেখার পরে আমি ইসলামের প্রতি সত্যিই আগ্রহী হয়ে পড়ি।

তিনি সিরিজটি সম্পর্কে বলেন, এটি এমন এক ইতিহাস যা সম্পর্কে আমি কিছুই জানতাম না। মুহিউদ্দিন ইবনে আরাবির সংলাপগুলো তার জীবনে একটি নতুন অর্থ দিয়েছে বলে জোর দিয়ে তিনি বলেন যে,তাঁর কথাগুলো আমাকে ইসলাম সম্পর্কে অনেকে চিন্তাভাবনা করতে বাধ্য করেছে এবং মাঝে মাঝে আমাকে কাঁদিয়েছে।

তিনি মোট চারবার সবগুলো পর্ব দেখেছেন এবং পঞ্চমবার তিনি আবার দেখা শুরু করেন। তিনি বলেন যে তুর্কি সিরিজটি তার ইসলামের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গির উপর দুর্দান্ত প্রভাব ফেলেছে।

তিনি আরো যোগ করেন আমি নতুন ইতিহাস শিখতে পছন্দ করি। ইসলাম সম্পর্কে আমার চোখের উপর যেই পর্দা ছিলো তা এই সিরিজটি চিরতরে উঠিয়ে দিয়েছে। এবং আমাকে আরো অনুসন্ধান করার ব্যাপারে উৎসাহিত করেছে।

তিনি বলেন ইতিহাস নিয়ে আমার কৌতূহলী ধারণাই আমাকে এই সিরিজ দেখতে প্রভাবিত করে এবং সিরিজ দেখার পরে আমি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার জন্য উদগ্রীব হয়ে উঠি।

তিনি একজন ব্যাপটিস্ট ক্যাথলিক হলেও তাঁর মনে থাকা সমস্ত প্রশ্ন নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে এবং শেষ পর্যন্ত তিনি ইসলামের প্রতি আরও আগ্রহী হয়ে উঠেন।

তিনি ইসলাম সম্পর্কে আরও জানার জন্য ইংরেজিতে পবিত্র কুরআন পড়েন এবং ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেন।

মুসলমান হওয়ার পক্রিয়াটি ব্যাখ্য করতে গিয়ে তিনি বলেন, আমি আমার আশেপাশে একটি মসজিদ অনুসন্ধান করতে থাকি এবং একটি মসজিদের সন্ধান পেয়ে সেখানে প্রবেশ করি। মসজিদের ইমাম আমাকে দেখে হতবাক হয়ে গিয়েছিলো। ঠিক সেদিন আমি মুসলমান হয়ে হয়ে যাই।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার বিষয়টি তার বন্ধুদের বললে তাদের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হন খাদিজা। তার বন্ধুরা তাকে বলে যে তোমার ব্রেনওয়াশ করা হয়েছে। খাদিজা আরো যোগ করেন আমি আর এই বিষয়টি মানুষের সাথে আলোচনা করি না। আমি তাদের বিশ্বাসে হস্তক্ষেপ করি না। যেনো তারাও আমার বিশ্বাসে হস্তক্ষেপ করতে না পারে। ছয় সন্তানের জননী খাদিজা বলেন, সময়ের সাথে সাথে তার বাচ্চারা তাকে তুর্কি অনুষ্ঠান দেখতে দেখে, তবে শুধু তার কনিষ্ঠ পুত্রই জানে, তিনি মুসলমান হয়েছেন।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন আমার অন্য সন্তানেরা এ বিষয়ে কিছু জিজ্ঞাসা করেনি। তারা সন্দেহ করেছে কিন্তু কিছু জিজ্ঞাসা করেনি। আরতুগ্রুল সিরিজকে তুরস্কের গেম অফ থ্রোনস হিসেবে বর্ণনা করা হয়। আরতুগ্রুল ১৩শ শতাব্দীতে আনাতোলিয়ায় অটোমান সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠার আগে এক চরিত্রের নাম। এই সিরিজে অটোমান সাম্রাজ্যের প্রথম নেতা আরতুগ্রুল গাজীর লড়াইয়ের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

Share This Post