Spread the love

বাংলাদেশ ক্রিকেটে অন্যতম সেরা স্পিনার মোহাম্মদ রফিক। প্রায় এক যুগ আগেই ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিয়েছেন এই অলরাউন্ডার। বর্তমানে নিজের ব্যবসা থেকে আয় রোজগার করে পরিবার চালাচ্ছেন রফিক। আর উপহার পাওয়া নিজের সবচেয়ে দামি জায়গায় হাসপাতাল-মাদ্রাসা তৈরি করেছেন এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার। কেরানীগঞ্জে নিজের সবচেয়ে দামি জায়গা দান করে দিয়েছেন তিনি। আইসিসি ট্রফি জয়ে এই জায়গা উপহার পেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেটা দান করে দিয়ে সেই জায়গায় তৈরি করা হয়েছে হাসপাতাল, মাদ্রাসা এবং কবরস্থান।এছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় তৈরি করেছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সম্প্রতি  দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রফিক জানান, “আমার এক পার্টনারের সাথে মিলে দেড়শ শতাংশ জায়গায় কবরস্থান, মসজিদ এবং মাদরাসা বানিয়ে দিয়েছি। আমার নিজস্ব জায়গার উপর।

এটা কেরানীগঞ্জের সবচেয়ে দামি জমির এলাকা। আরও কিছু জায়গা আছে, এর মধ্যে দশ শতাংশ জায়গা মসজিদ বানানোর জন্য রেখেছি। আরও দশ শতাংশ জায়গা রেখেছি, ওখানে স্কুল বানিয়ে দিব।”– যোগ করেন এই টাইগার সাবেক ক্রিকেটার। এছাড়া কোন মানুষের শিক্ষা বা খাওয়ার অভাব দেখতে চান না তিনি। রফিক আরও বলেন,  স্বাধীনতার পর দেখেছি হা’হাকার কী জিনিস। তখন যাদের পয়সা ছিল ওরাই স্কুলে যেত, ওরাই ভালো খাবার খেত। আমি চাই না এখন ওরকম প’রিস্থিতি হোক। যে ভুল আমরা করেছি, এখনকার মানুষ যেন ঐ ভুল না করে।

Share This Post