Spread the love

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে প্রায় ২০০ মিটার সুড়ঙ্গের সন্ধান পেয়েছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় পুলিশ। দেশটির পুলিশের দাবি, অপহৃত এক ব্যক্তিকে উদ্ধারে নেমে আসামের করিমগঞ্জ জেলার বালিয়া এলাকায় শুক্রবার (১ জানুয়ারি) এ সুড়ঙ্গের খোঁজ পাওয়া গেছে।

করিমগঞ্জ জেলা পুলিশ জানিয়েছে, পাচার, অপহরণসহ আন্তর্জাতিক চোরাচালানে সুড়ঙ্গটি ব্যবহার হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গত রবিবার নিলামবাজার থানার শিলুয়া গ্রামের বাসিন্দা দিলোয়ার হোসেনকে তুলে নিয়ে যায় এক দল দুষ্কৃতি।

পরে বাংলাদেশি ফোন নম্বর থেকে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করা হয়। অপহরণকারীরা অনড় থাকায় পাঁচ লক্ষ টাকা দিতেই সম্মত হয় ওই পরিবার। এর পরেই ফোনের অন্য প্রান্ত থেকে নির্দেশ আসে, পার্শ্ববর্তী নয়াগ্রামের এলিমুদ্দিনের কাছে টাকা দিতে হবে।

এতেই সূত্র পেয়ে বুধবার এলিমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর দেশটির পুলিশ সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় শুরু করে তল্লাশি। এতে সুড়ঙ্গের বিষয়টি প্রকাশ হয়ে যেতে পারে আশঙ্কায় দুষ্কৃতিরা দিলোয়ারকে ছেড়ে দেয়।

ফিরে এসে তিনিই পুলিশকে সুড়ঙ্গের কথা জানান। এরপর শুক্রবার ভারতীয় পুলিশ অফিসাররা বালিয়ায় যান। এরপরই খোঁজ পান প্রায় ২০০ মিটার দীর্ঘ সুড়ঙ্গ। দিলোয়ার জানান, বাংলাদেশ প্রান্তেও ওই একই চেহারা। ওই পথে দুষ্কৃতিরা নিয়মিত যাতায়াত করে। চলে পাচার বাণিজ্যও। ভারতীয় পুলিশ সুপার জানান, তৎক্ষণাৎ সুড়ঙ্গের ভারত-মুখ বন্ধ করতে বিএসএফকে বলা হয়েছে।

Share This Post