Spread the love

মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস বিকাশ তাদের একাউন্ট টাকা জমালে ইন্টারেস্ট দিচ্ছে। বিকাশ একাউন্টে টাকা নিরাপদে রাখার পাশাপাশি টাকা জমিয়ে রাখলে বছরে সর্বোচ্চ ৪% পর্যন্ত ইন্টারেস্ট দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। বিকাশ অ্যাপে এ সংক্রান্ত দেয়া হয়েছে।  

অ্যাপ থেকে জানা যায়, একাউন্টে ১ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা থাকলে বাৎসরিক ১.৫% ইন্টারেস্ট, ৫ হাজার থেকে ১৫ হাজার পর্যন্ত ২%, ১৫ হাজার থেকে ৫০ হাজার ৩%, ৫০ হাজার এর অধিক ৪% হারে ইন্টারেস্ট দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

উদাহরণস্বরূপ, আপনার বিকাশ একাউন্টে যদি মাসজুড়ে কমপক্ষে ১ হাজার টাকা থাকে, ঐ মাসে ২টি লেনদেন করেন এবং ঐ মাসের গড় ব্যালেন্স যদি ১ হাজার থেকে ৫ টাকার মধ্যে থাকে তাহলে আপনি ঐ মাসের গড় ব্যালেন্সের উপর ১.৫% বাৎসরিক হারে ইন্টারেস্ট পাবেন।

ইন্টারেস্ট পাবার শর্তসমূহঃ

আপনার KYC ফরম বিকাশ কর্তৃক গৃহীত হতে হবে এবং আপনার একাউন্টটি একটিভ থাকতে হবে। মাসে কমপক্ষে আপনাকে ২টি আর্থিক লেনদেন (‘ক্যাশইন’, ‘ক্যাশআউট’, ‘ATM ক্যাশআউট’, ‘পেমেন্ট’, ‘সেন্ডমানি’ অথবা ‘মোবাইল রিচার্জ’) করতে হবে। মাসজুড়ে প্রতি দিনশেষে আপনার একাউন্টে কমপক্ষে ১ হাজার টাকা ব্যালেন্স থাকতে হবে।
মাসশেষে প্রতিদিনের গড় ব্যাল্যান্সের উপর আপনার প্রাপ্ত ইন্টারেস্টের পরিমান হিসাব করা হবে। সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ভ্যাট এবং ট্যাক্স কর্তন সাপেক্ষ্যে বছরে দুই দফায় আপনার একাউন্টে ইন্টারেস্ট দেয়া হবে।

ইন্টারেস্ট সেবা চালু করাঃ

উপরোক্ত শর্ত পালনের মাধ্যমে সকল নতুন এবং পুরাতন বিকাশ কাস্টমাররা তাদের বিকাশ একাউন্টে ইন্টারেস্ট পাবেন। সেবাটি চালু করার জন্যে কিছুই করতে হবে না।

এদিকে বিকাশ অ্যাপের ওটিপি কোড নিয়ে গ্রাহকদের প্রতারণার দীর্ঘদিনের অভিযোগকে গুরুত্ব দিয়ে এবার নতুন নিয়ম চালু করছে সংস্থাটি।

নতনু পদ্ধতির ফলে একাধিক ফোন থেকে বিকাশের একই ব্যবহারকারীর আইডি লগইন বন্ধ করা যাবে না। একটি একাউন্ট থেকেই এখন ট্রানজেকশন করতে পারবেন। ওটিপি পিন নাম্বার দিয়েও আর অন্য ডিভাইস থেকে একাউন্ট চালাতে পারবেন না।

এর ফলে প্রতারকরা আপনার ওটিপি পিন নিয়ে আপনার একাউন্ট থেকে টাকা হাতিয়ে নিতে পারবে না।

Share This Post