ভারত ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা প্রশমনের আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর লাদাখ সীমান্তে ট্যাংক পাঠিয়েছে বেইজিং।

চীনের রাষ্ট্রীয় নিউজ চ্যানেল সিসিটিভি’র বরাত দিয়ে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, সোমবার (১১ অক্টোরব) চীন ও ভারতের সেনা কমান্ডারদের মধ্যে ১৩তম বৈঠক কোনো ফলাফল ছাড়াই শেষ হয় এবং এই ব্যর্থতার জন্য পরস্পরকে দায়ী করেছে নয়াদিল্লি বেইজিং।

সোমবারই সীমান্তে ভারতের পক্ষ থেকে স্থাপিত ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায় লাদাখ সীমান্তে চীনা ট্যাংক মোতায়েনের দৃশ্য ধরা পড়েছে।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থাগুলোর খবরে বলা হচ্ছে, দুই দেশের আলোচনায় অচলাবস্থার অর্থ হলো চীন ও ভারত দুই দেশই লাদাখ সীমান্তে সেনা মোতায়েন রাখবে। ফলে টানা দ্বিতীয় বছর সেখানে বিপজ্জনক মাইনাস তাপমাত্রায় অবস্থান করতে হবে ভারতীয় ও চীনা সেনাদের।

এদিকে সোমবার ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, আলোচনায় ভারত গঠনমূলক পরামর্শ দিয়েছে। কিন্তু তাতে রাজি হয়নি চীন। তারা সামনে এগিয়ে যাওয়ার মতো কোনো প্রস্তাবও দেয়নি।

অন্যদিকে চীনা সামরিক মুখপাত্রের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারতীয় পক্ষ অযৌক্তিক ও অবাস্তব দাবি নিয়ে অটল ছিল। এতে সমঝোতা প্রক্রিয়া কঠিন হয়ে ওঠে। দুই দেশের কমান্ডাররা দুই মাসের বিরতির পর রোববার লাদাখ এলাকায় চীনা অংশের মলদোতে আলোচনায় মিলিত হয়েছিলেন।

Share This Post