ওয়াজ মাহফিলে কুরআনের বাইরে উসকানিমূলক কোনও বক্তব্য দেওয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান।

তিনি বলেন, নীতি-নৈতিকতা-মূল্যবোধ লালন ও ধারণা করা আমাদের প্রত্যেকের কর্তব্য। সবাইকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে এবং এটি তৃণমূল পর্যায়ে ছড়িতে দিতে হবে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) ভোলা জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত দিনব্যাপী সচেতনতামূলক আলোচনা সভায় ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন।

ফরিদুল হক খান বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের চিন্তা করতে হবে যেন কেউ ধর্মকে ব্যবহার করে জঘন্য অপরাধ করতে না পারে। সেজন্য তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। ফেসবুক, ইউটিউবে এ ধরনের অপপ্রচার বেশি ঘটছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলছি, যেন প্রযুক্তি ব্যবহার করে যারা ধর্ম নিয়ে কটূক্তি ছড়ায় এই ধরনের অপরাধীদের ধরার চেষ্টা করছি। যারা ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যারা অন্যায়কারী, অপরাধের সঙ্গে লিপ্ত এবং সংবিধানের মূলনীতি ভঙ্গ করার চেষ্টা করে তাদের বিরুদ্ধে আইন হয়ে গেছে। যে ধর্মের লোক হোক না কেন তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি বলেন, দেশি ও বিদেশি একটি চক্র মিলে ধর্মীয় অনুভূতিকে আঘাত হেনে দেশর সম্প্রতি নষ্ট করার চেষ্টা করে। এদের কোনও ধর্ম ও দল নেই। এই লোকগুলোকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে হবে।

Share This Post