Spread the love

তুরস্ক ও ইন্দোনেশিয়ার একসঙ্গে ইসলামোফোবিয়া ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে মুসলিম সম্প্রদায়ের সমর্থন করার জন্য কাজ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু।

আজ মঙ্গলবার জাকার্তায় ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেটনো মার্সুডির সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তুরস্ক ও ইন্দোনেশিয়ার একসঙ্গে ইসলামোফোবিয়া ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে মুসলিম সম্প্রদায়ের সমর্থন করার জন্য কাজ করা উচিত।

ইসলামোফোবিয়ার ক্রমবর্ধমান হুমকি এবং মুসলিম বিশ্বের বিরুদ্ধে বৈষম্যের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, তাদের মূল্যবোধের ক্ষতি করার চেষ্টার বিরুদ্ধে একত্রিত হওয়া উচিত।

দুটি গুরুত্বপূর্ণ মুসলিম দেশ হিসেবে আমাদের অবশ্যই মুসলিম সম্প্রদায়ের পারস্পরিক লক্ষ্য এবং স্বার্থ রক্ষা করতে হবে।

এ সময় মেভলুত কাভুসোগলু উল্লেখ করেন, ২০২০ সাল আঙ্কারা ও জাকার্তার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ৫০তম বছর। সেই উপলক্ষ্যে আসন্ন বছর (২০২১) ইন্দোনেশিয়া সফরের পরিকল্পনা করছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান।

ওই সফরে দুই দেশের মধ্যে একটি উচ্চ-স্তরের কৌশলগত সহযোগিতা কাউন্সিল শুরু করা হবে।

আনাদোলু এজেন্সির খবরে বলা হয়, উভয় দেশ দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পরিমাণ বর্তমান ১.৫ বিলিয়ন ডলার থেকে ১০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে এবং বিনিয়োগ বাড়াতে সম্মত হয়েছে।

পরে দেশ দুটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সহযোগিতার পাশাপাশি কূটনৈতিক এক্সচেঞ্জ এবং প্রশিক্ষণের বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারকও স্বাক্ষর করেন।

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, উভয় পক্ষই ২০২১ সালে একটি মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির জন্য আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হয়েছে।

পাশাপাশি বিস্তৃত অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব চুক্তিতে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ায় তুর্কি বিনিয়োগকারীদের ক্রমবর্ধমান আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, এখানে তুর্কি বিনিয়োগের জন্য আরো অনুকূল পরিবেশের ব্যবস্থা করা হবে।

করোনা মহামারি পরবর্তী সময়ে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ও স্থিতিশীলতা পুনরুদ্ধারের জন্য জোর দিয়ে রেটনো মার্সুডি বলেন, ইন্দোনেশিয়া ও তুরস্ক মুসলিমদের কল্যাণ সমাধানের জন্য ইসলামিক সহযোগিতা সংগঠনকে শক্তিশালী করতে সম্মত হয়েছে।

Share This Post