ঢাকার উত্তরা লুভানা হাসপাতালে মেয়ের চিকিৎসা করতে ১০ দিন ধরে রয়েছেন কামাল হোছাইন।

তবুও স্থানীয় রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার তিনি। মন্দিরে ভাংচুর মামলার আসামি হন তিনি। চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের শাহপুরা গ্রামে ঘটে এ ঘটনা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননা ঘটনার জেরে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের শাহপুরা গ্রামে গত বৃহস্পতিবার রাতে জলদাশপাড়ায় মন্দিরসহ হিন্দুদের ঘরে বাইরে হামলা করে দুর্বৃত্তরা।

এ ঘটনায় চকরিয়া পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ চকরিয়া থানায় মামলা দায়ের করে। এতে ২০ জনের নাম উল্লেখপূর্বক ও অজ্ঞাতসহ ৩০০ জনকে আসামি করে। কিন্তু ঘটনার ১০ দিন আগে থেকে ঢাকায় অবস্থান করছে এমন ব্যক্তিকেও আসামি করা হয়েছে।

সাহারবিল ইউনিয়নের কোরালখালী গ্রামের বাসিন্দা আকবর আহমদের ছেলে মো: কামাল হোছাইন অভিযোগ করেছেন, আমি ৫ অক্টোবর থেকে মেয়ে তানিয়া সুলতানা হ্যাপীর (১৪) হার্টের চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আছি।

১৫ অক্টোবর ঢাকার উত্তরা লুভানা হাসপাতালে মেয়ের অপারেশন হয়েছে। বর্তমানেও ওই হাসপাতালের ৬০৪ নম্বর বেডে আছি। কিন্তু স্থানীয় একটি মহল রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে আমাকে মন্দির ভাঙা মামলায় আসামি করেছে।

ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকলে আসামি করলে বলার কিছু থাকতো না। তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে ঘটনার সঠিক তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

Share This Post