Spread the love

২০২১ সালের মধ্যে ছয় কোটি ৮০ লাখ ডোজ করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ। বিশ্বব্যাপী গ্যাভি-দ্য ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের (দ্য গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিনস অ্যান্ড ইমিউনাইজেশনস) ব্যবস্থাপনায় কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় এ ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ। 

বুধবার (২৫ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক সংবাদ সম্মেলনে সম্প্রসারিত ভ্যাকসিন কর্মসূচির পরিচালক ডা. সামসুল হক বলেন, যারা আগে জাতীয় ভ্যাকসিন বিতরণ পরিকল্পনা জমা দেবে তারাই আগে ভ্যাকসিন পাবে। গ্যাভি যখন থেকে পরিকল্পনা জমা নেওয়া শুরু করবে, আশা করছি, আমরা প্রথম দিনই আমাদের পরিকল্পনা জমা দিতে পারব।

অর্থায়নের মাধ্যমে গ্যাভি থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করবে বাংলাদেশ এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের শর্ত অনুযায়ী কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য জাতীয় ভ্যাকসিন বিতরণ পরিকল্পনা জমা দেবে। গ্যাভির প্রতি ডোজ ভ্যাকসিনের জন্য ব্যয় হয়েছে এক দশমিক ৬২ থেকে দুই ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১৩৫ বা ১৭০ টাকা।

এই সুবিধায় আসা ভ্যাকসিন ছাড়াও ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট থেকে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের মাধ্যমে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন বাংলাদেশে আসবে।

ডা. সামসুল হক আরও জানান, প্রতি ডোজ ভ্যাকসিন বিতরণের জন্য সরকারকে এক দশমিক ২৫ মার্কিন ডলার ব্যয় করতে হবে।

Share This Post